চট্রগ্রামের ঐতির্য মেজবানি মাংস তৈরির রেসিপি !

মেজবানি মাংস চট্টগ্রামের আঞ্চলিক রান্না হলেও সারাদেশেই এর জনপ্রিয়তা রয়েছে। ভোজনবিলাসীদের কাছে প্রিয় একটি নাম এই মেজবানি মাংস। এটি রাঁধতে অন্যান্য রান্নার চেয়ে উপকরণ কিছু বেশি লাগে। তবে রেসিপি জানা থাকলে আপনি ঘরে বসেই নিতে পারেন ঐতিহ্যবাহী এই রান্নার স্বাদ। রইলো রেসিপি। উপকরণঃ গরু/খাসির মাংস ১ কেজি, পেঁয়াজ কুচি ২ কাপ, পেঁয়াজ বাটা ৩ টেবল চামচ, আদা বাটা ২ টেবিল চামচ, রসুন বাটা দেড় টেবিল চামচ, হলুদ গুঁড়ো ২ চা চামচ, মরিচ গুঁড়ো দেড় চা চামচ, ধনিয়া গুঁড়ো দেড় চা চামচ, গরম মশলা গুঁড়ো ১ চা চামচ, সরিষা বাটা ১ টেবিল চামচ, জায়ফল বাটা হাফ চা চামচ, পোস্তদানা বাটা ১ চা চামচ, তেজপাতা ২-৩ টি, কাচা মরিচ ৭-৮ টি, লবণ স্বাদমতো, তেল ১ কাপ, পেঁয়াজ বেরেস্তা ১/৪ কাপ, জিরা ১ টেবিল চামচ, এলাচি ৩-৪ টি, দারুচিনি ২ টুকরা, জয়ত্রী কয়েক টুকরা, মৌরি ১ চা চামচ, মেথি ১ চা চামচ, তিল ১ চা চামচ, রাঁধুনি আধা চা চামচ, কাবাবচিনি ১ চা চামচ। প্রণালিঃ প্রথমে একটা বাটিতে মাংস এর সাথে ভাজা মশলার অর্ধেকটা আর সাথে পেঁয়াজ ,আদা বাটা, রসুন বাটা, হলুদ গুঁড়ো, মরিচ গুঁড়ো, ধনিয়া গুঁড়ো, সরিষা বাটা, পোস্তদানা বাটা, জায়ফল বাটা, তেজপাতা ২-৩ টি, লবণ স্বাদমতো দিয়ে ভালোভাবে মেখে মেরিনেট করে রাখুন ১ ঘণ্টা। এবার হাঁড়িতে তেল দিয়ে পেয়াজ কুঁচি লাল করে বেরেস্তা করে নিন। এতে মেরিনেট করে রাখা মাংস দিয়ে কষিয়ে নিন। মাংস কষানো হলে ১ কাপ পরিমাণ গরম পানি দিন। মাংস সিদ্ধ হয়ে আসলে এতে পেঁয়াজ বেরেস্তা, কাঁচা মরিচ আর বাকি অর্ধেকটা ভাজা মসলা দিয়ে নাড়াচাড়া করে কম আঁচে রান্না করুন আরও ২০ মিনিট। আলু দিতে চাইলে এখন দিন। তেলে ভেজে নিতে পারেন আলুগুলোকে। তেল উঠে আসলে বুঝবেন মাংস হয়ে গেছে। লেখকঃ উম্মে রত্না, ঢাকা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *