চাঞ্চল্যকর নুরবানু হত্যার রহস্য উদঘাটন

প্রথম সময় ডেস্কঃ

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার তারাব পৌরসভার গন্ধর্বপুর এলাকায় চাঞ্চল্যকর নুরবানু হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (পিবিআই)।

দীর্ঘ ১১ মাস পর চাঞ্চল্যকর এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করা হয়। গত বছরের ৩০ জুন সকাল ৮টার থেকে দুপুর ১টার মধ্যে গন্ধর্বপুর এলাকায় ছেলে ইলিয়াছ মিয়ার বাড়িতে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা নুরবানুকে (৫৫) গলাকেটে হত্যা করে।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে মো. ইলিয়াছ মিয়া বাদী হয়ে ১ জুলাই রূপগঞ্জ থানায় অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

তবিজ্ঞানভিত্তিক ও তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় দীর্ঘ ১১ মাস পর নুরবানু হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত কামরুজ্জামানকে (৩৬) গত ২৩ জুলাই সোনারগাঁয়ের কাঁচপুর থেকে গ্রেপ্তার করে পিবিআই। সে রূপগঞ্জের গন্ধর্বপুর এলাকার আলাউদ্দিনের ছেলে।

পিবিআই জানায়, থানা পুলিশের তদন্তকালে পুলিশ হেডকোয়ার্টাসের মাধ্যমে মামলাটির তদন্তভার পিবিআইকে দেয়া হয়। পিবিআই মামলাটির তদন্তভার গ্রহণ করে পুলিশ পরিদর্শক (নিঃ) নাছির উদ্দিন সরকারকে তদন্তকারি কর্মকর্তা নিয়োগ করে।

কামরুজ্জামানকে ২ দিনের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে নুরবানুকে হত্যার কথা স্বীকার করে। কামরুজ্জামান নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. কাউছার আলমের আদালতে হত্যার দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন।

জবানবন্দিতে সে নিজের জড়িত থাকার কথা স্বীকার করার পাশাপাশি জাহাঙ্গীর (৫০) ও রুবেল হোসেন (৩০) এর নাম বলে। পরে কামরুজ্জামানের তথ্যমতে, রুবেল হোসেনকে (৩০) গ্রেপ্তার করা হয়। ২৫ জুলাই তাকেও ২ দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়। পিবিআই হেফাজতে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রয়েছে। মামলাটি বর্তমানে তদন্তাধিন রয়েছে।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম (পিপিএম) বলেন, অপরাধ তদন্তে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি অবলম্বন করায় পিবিআই এখন সাফল্যের শীর্ষে অবস্থান করছে। পিবিআই এর সাফল্যের ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে বলে আশা করছি।

Advertisements

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *