সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কা: ৯ শিক্ষকের জিডি

প্রথম সময় ডেস্কঃ

সম্ভাব্য সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কায় নিরাপত্তা চেয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) নয়জন শিক্ষক। রোববার রাতে নগরীর মতিহার থানায় জিডি করেন তারা।

১২ হাজার শিক্ষক-কর্মচারীর আশার দিন ফুরাচ্ছে না
এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএসএম সিদ্দিকুর রহমান। তিনি বলেন, জিডিটি গ্রহণ করা হয়েছে। আমরা বিষয়টি নিয়ে কাজ করছি।

নিরাপত্তা চাওয়া ৯ শিক্ষক হলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র উপদেষ্টা এবং ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক মিজানুর রহমান, সাবেক প্রক্টর ও রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক তরিকুল হাসান মিলন, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক এক্রাম উল্লাহ, প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জাহাঙ্গীর আলম সাউদ, সাবেক প্রক্টর ও মনোবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মুজিবুল হক আজাদ খান, ভূতত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক সুলতান-উল-ইসলাম টিপু, ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগে অধ্যাপক আলী রেজা, সংগীত বিভাগের অধ্যাপক অসিত রায় ও নাট্যকলা বিভাগের ফারুক হোসাইন।

জিডি সূত্রে জানা গেছে, গত ১০ সেপ্টেম্বর দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক ডিনস কমপ্লেক্সের শিক্ষক লাউঞ্জে আলোচনা করছিলেন। এ সময় তাদের কাছে খবর আসে আব্দুল্লাহ আল মামুন নামে একজন বহিরাগত ও রাবি স্কুলের সহকারী শিক্ষক হিসেবে সদ্য যোগ দেয়া সাদ্দাম হোসেনের নেতৃত্বে কিছুসংখ্যক বহিরাগত ডিনস কমপ্লেক্সের বাইরে থাকা শিক্ষকদের গাড়িগুলোর গোপনে ভিডিও ধারণ করছেন। পরে শিক্ষকরা সেখানে উপস্থিত হলে তারা শিক্ষকদের ছবি তোলেন এবং ভিডিও ধারণ করেন।

শিক্ষকরা জিডিতে অভিযোগ করেন, ছবি ও ভিডিও ধারণের কারণ জানতে চেয়ে শিক্ষকরা এগিয়ে গেলে তারা সেখান থেকে চলে যান। তবে যাওয়ার সময় তারা শিক্ষকদের লক্ষ্য করে অশ্রাব্য ভাষা ও আক্রমণাত্মক অঙ্গভঙ্গি প্রদর্শন করেন। ওই বহিরাগতদের দ্বারা যেকোনো সময় হামলা ও তাদের গাড়ির ক্ষতি সাধন হতে পারে আশঙ্কা করে ডায়েরিতে শিক্ষকরা নিজেদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবি জানান।

প্রসঙ্গত, নিরাপত্তা চেয়ে জিডি করা নয়জন শিক্ষকই রাবির সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক মুহাম্মদ মিজানউদ্দিন পন্থী। তারা বর্তমান প্রশাসনের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ এনে অপসারণ দাবি করে আসছিলেন। ‘দুর্নীতি বিরোধী শিক্ষক সমাজ’র ব্যানারে তারা বর্তমান প্রশাসনের ‘অনিয়মের’ বিচার চেয়ে আন্দোলন করছিলেন। এতে প্রায় অর্ধশতাধিক শিক্ষক অংশ নেন। শিক্ষকদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনে রাবি উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান ও উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়াকে তলব করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *