আলমগীরের ভুয়া অ্যাকাউন্ট থেকে বিতর্কিত স্ট্যাটাস

প্রথম সময় ডেস্ক: নায়ক আলমগীরের নামে ফেসবুকে খোলা হয়েছে একটি ভুয়া অ্যাকাউন্ট। সেটি ব্যবহার করে প্রায়ই নানা রকম স্ট্যাটাস দেওয়া হয়, আপলোড করা হয় আলমগীর ও তাঁর স্ত্রী কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়লার ছবি। সম্প্রতি সেই অ্যাকাউন্ট থেকে স্ট্যাটাস দেওয়া হয়েছে, ‘ধর্ম যার যার, উৎসবও তার তার।’ এত দিন নিজের নামের ভুয়া অ্যাকাউন্ট নিয়ে মাথাব্যথা ছিল না তাঁর। কিন্তু এবার তিনি খেপেছেন। কেননা এ স্ট্যাটাসের সঙ্গে তিনি একমত নন। ঘটনায় বিব্রত আলমগীর জানিয়েছেন, তিনি আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন।

আলমগীরের ওই অ্যাকাউন্টকেই ‘আসল’ বলে দাবি করেছে ভুয়া ওই আইডি। তবে নায়ক আলমগীর বলেন, ‘প্রায় চার–পাঁচ বছর ধরে কে বা কারা আমার নাম ব্যবহার করে ওই আইডি ব্যবহার করে আসছে। এই মানুষগুলো মাঝেমধ্যেই আমার নাম ব্যবহার করে স্ট্যাটাস দেয়। চার বছর আগে তারা মনগড়া এক স্ট্যাটাস দিয়েছিল, তারপর গা–ঢাকা দিয়েছে। আবার কিছুদিন পর হঠাৎ সক্রিয় হয়। চার বছর আগের একই স্ট্যাটাস তারা সম্প্রতি আবারও দিয়েছে, যা বিভ্রান্তিকর।’ ধর্মীয় অনুভূতিকেন্দ্রিক বিষয় নিয়ে বারবার এ রকম স্ট্যাটাস দেওয়ায় এবার শক্ত পদক্ষেপ নেবেন বলে জানিয়েছেন আলমগীর। তিনি মনে করেন, তাঁকে হয়রানির উদ্দেশ্যে এসব করা হচ্ছে।

আমার নাম ব্যবহার করে মানুষকে বিভ্রান্ত করছে কেউ। আমি এর প্রতিবাদ করছি, আমার বন্ধুবান্ধব, সহকর্মী, ভক্ত, দেশের জনগণকে বলছি যে, ওই অ্যাকাউন্ট আমার না

আলমগীর

২০১৬ সালেও একই ঘটনায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ করেছিলেন আলমগীর। তবে সে সময় তিনি আইনি পদক্ষেপ নেননি। তবে এবার নেবেন। তিনি বলেন, ‘আমার নাম ব্যবহার করে ফেসবুকে ভুয়া অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে বিতর্কিত যে স্ট্যাটাস দেওয়া হচ্ছে, তার সঙ্গে আমার কোনো সম্পৃক্ততা নেই। বারবার আমার নাম ব্যবহার করে মানুষকে বিভ্রান্ত করছে কেউ। আমি এর প্রতিবাদ করছি, আমার বন্ধুবান্ধব, সহকর্মী, ভক্ত, দেশের জনগণকে বলছি যে, ওই অ্যাকাউন্ট আমার না।’ ইতিমধ্যে ওই আইডি নিস্ক্রিয় হয়ে গেছে।

নায়ক আলমগীরের অফিশিয়াল ফেসবুক আইডি এ এম আলমগীর। করোনা মহামারির এই সময়ে বেশির ভাগ সময় তিনি কাটাচ্ছেন বাড়িতে। শিগগিরই কোনো ছবির শুটিং করবেন কি না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতির মধ্যে কোনো শুটিংয়ের পরিকল্পনা নেই। সার্বিক অবস্থা বুঝে পরে সিদ্ধান্ত নেব।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *