একসঙ্গে মুজিববর্ষ উদযাপনে বাংলাদেশ-ভারত

প্রথম সময় ডেস্ক: বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের অভিন্ন ইতিহাসই বাংলাদেশ-ভারতের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক গড়ে ওঠার মূল ভিত্তি। আর দু’দেশের সম্পর্কের আলোকশিখা জ্বালিয়েছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং ইন্দিরা গান্ধী। তারই ধারাবাহিকতায় দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং নরেন্দ্র মোদি।

ভারত-বাংলাদেশের সম্পর্কের ঐতিহ্য ধরে রাখতেই দুদেশ একসঙ্গে মুজিববর্ষ উদযাপন করছে। এ উপলক্ষে ভারতীয় হাইকমিশন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সম্মানে তৈরি করেছে বিশেষ সংস্করণের হাতঘড়ি। মঙ্গলবার সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সেই হাতঘড়ি উন্মোচন করেন।

মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত বিশেষ সংস্করণের ঘড়ি বানিয়েছে ভারতীয় ঘড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টাইটান। যে ঘড়ির ডায়ালে রয়েছে বঙ্গবন্ধুর স্বাক্ষরসহ প্রতিকৃতি। যা তার বার্তার নিরবচ্ছিন্নতা এবং চিরন্তন প্রাসঙ্গিকতার প্রতিনিধিত্ব করে।

ভারতের হাইকমিশনার শ্রী বিক্রম দোরাইস্বামী বলেন, বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের জাতির পিতা হলেও তিনি ভারতীয় জনগণের কাছে বীর। এটাই স্বাভাবিক যে, স্বাধীনতার পর ১৯৭২ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশে আসার পথে ভারতীয় জনগণ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে যে উষ্ণতা ও ভালোবাসা দেখিয়েছিলেন তেমনিভাবে তারা মুজিববর্ষও উদযাপন করতে চান।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী ২০২০ ‍সালের ১৭ মার্চ মুজিববর্ষ উদযাপনের সূচনাকালে বঙ্গবন্ধুকে শ্রদ্ধা জানিয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধুকে সাহসী নেতা হিসাবে অভিহিত করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছিলেন, বঙ্গবন্ধুর জীবন সবার জন্য অনুপ্রেরণা ছিল।

ভারতের বহুজাতিক টাটা গ্রুপের বিখ্যাত ঘড়িনির্মাতা প্রতিষ্ঠান ‘টাইটান’ ভারতীয় হাই কমিশনের জন্য এই বিশেষ সংস্করণের ঘড়িগুলো তৈরি করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *