‘ঈশ্বর যখন দেন, ছাদ ফুঁড়েই দেন’

প্রথম সময় ডেস্ক: প্রবাদ বাক্য যে মিথ্যা কিছু নয় তা প্রমাণ করলেন ইন্দোনেশিয়ার জসুয়া হুটাগালুং। ৩৩ বছরের এই যুবকের বাড়ির ছাঁদ ফুঁড়েই পড়েছে উল্কাপিণ্ড। আর এটি বিক্রি করেই এক রাতে তিনি বনে গেছেন কোটিপতি। ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রা দ্বীপের কোলাঙ্ক এলাকায় তার বাড়ি। কফিন তৈরি করেই কোনোরকমে জীবিকা নির্বাহ করতেন তিনি। তবে গত আগস্টের ওই ঘটনা তার জীবন বদলে দিয়েছে। যদিও বিষয়টি সম্প্রতি তুলে নিয়ে এসেছে বৃটিশ গণমাধ্যম দি ইন্ডিপেনডেন্ট।

খবরে জানানো হয়, উল্কাপিণ্ডটি জসুয়া বিক্রি করেছেন ১.৪ মিলিয়ন ইউরো বা বাংলাদেশি টাকায় ১৫ কোটি টাকারও বেশি দামে।

ঘটনার দিন বাড়িতে বসেই কাজ করছিলেন তিনি। এসময় বাড়ির টিন ফুঁড়ে ভেতরে পড়ে আশ্চর্য ওই ‘পরশ পাথর’। এত গতিতে এটি পড়েছে যে ঘরের মেঝেতেও এটি ১৫ সেন্টিমিটারের বেশি গেথে যায়। বিষয়টি নিয়ে প্রথমে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন জসুয়া। ফেসবুকে বিষয়টি ভিডিও করে পোস্ট করেন তিনি। এতে তিনি বলেন, হঠাৎ আকাশ থেকে একটি কালো পাথরের মতো পড়ে। এটা আমাকে অবাক করেছে। তবে তা যা–ই হোক না কেন, আশা করি আমাদের পরিবারের জন্য এটি একটি ভালো লক্ষণ। এটা এত তীব্র শব্দে পড়েছিল যে আমার বাড়ি কেঁপে উঠেছে। আমি যখন পাথরটা হাতে তুলেছি তখনও এটি প্রচণ্ড গরম ছিল।

বিজ্ঞানীরা গবেষণা করে জানিয়েছেন, উল্কাপি-টির বয়স প্রায় ৪.৫ বিলিয়ন বছর। এর প্রতি গ্রামের দাম ৬৪৫ পাউন্ড। এটিকে কিনে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের উল্কা গবেষক জ্যারেড কলিনস। এটিকে অ্যারিজোনা স্টেট ইউনিভার্সিটিতে গবেষণার জন্য রেখে দেয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *