সেদিন যেভাবে আপার মুক্তির জন্য খুলনা আদালত চত্বরে মিছিল করেছিলামঃ স্মৃতি চারনে সাবেক ছাত্রনেতা অসিত

অনলাইন ডেস্কঃ

১৬ই জুলাই। ২০০৭ সালে এই দিনে গভীর রাতে তৎকালিন অবৈধ তত্ত্বাবধায়ক সরকার ধানমন্ডির নিজ বাসা সুধাসদন থেকে প্রিয়নেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে গ্রেফতার করে। পরেরদিন দিন (১৭ই জুলাই) আমরা খুলনা মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বর্তমান মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক ভাইয়ের পুরানো মামলায় খুলনা কোর্টে হাজিরা দিন থাকায় খালেক ভাইয়ের সাথে আমিও কোর্টে যাই। কোর্টে থাকা অবস্থায় খালেক ভাই সহ আমরা তাৎক্ষণিকভাবে প্রতিবাদ মিছিলের পরিকল্পনা করি। নেত্রী গ্রেফতারের খবরে খুলনার সর্বত্র থমথমে ভাব, খুলনা কোর্ট চত্বর এলাকায় পুলিশী আনাগোনা ছিল অনেক বেশি। আমরা দিশেহারা হয়ে পড়েছিলাম। পরে খালেক ভাইয়ের নেতৃত্বে আমি সহ আনিচুর রহমান পপলু ভাই, রুপসার আলী আকবর ভাই, শেখ মোঃ আবু হানিফ, মোঃ নুরুজ্জামান, সফিকুর রহমান পলাশ, হিটলু, মাসুদুর রহমান বিশ্বাস, এবিএম কামরুজ্জামান, ঊজ্জ্বলসহ পরিচিত অনেকেই ছিলেন কোট চত্ত্বরে। জয় বাংলা শ্লোগানে সমস্ত কোর্ট চত্বর কেঁপে উঠে।
এর পরেই শ্লোগান দেই, অবিলম্বে শেখ হাসিনার মুক্তি চাই দিতে হবে। শেখ হাসিনার কিছু হলে, জ্বলবে আগুন, ঘরে ঘরে এমন মুহু মুহু শ্লোগানে আশে পাশের অনেকেই আওয়ামীলীগের নীরব সমর্থকেরা সাহসের সাথে মিছিলে শরীক হন।
এভাবেই নেত্রী গ্রেফতারের প্রতিবাদে মিছিল করি। প্রতিবাদ মিছিলের স্লোগানে স্লোগানে মুহুর্তের মধ্যে কোট চত্বরসহ খুলনার রাজপথ প্রকম্পিত করি। তবে আমাদের ভয়ও ছিল।
পুলিশ বা গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন আমাদের উপর চড়াও হতে পারে কিংবা আমাদের গ্রেফতার‌ও করতে পারে। কিন্তু ভয়ভীতি সবকিছু উপেক্ষা করে নেত্রী গ্রেফতারের প্রতিবাদে সর্বপ্রথম আমরা খুলনায় প্রতিবাদ মিছিল করেছিলাম। যা সেই সময়ে খুবই দুঃসাহসিক ব্যাপার ছিল। কারণ ক্ষমতায় তখন জেনারেল মইন ইউ আহমেদ সমর্থিত সরকার।

লেখকঃ অসিত বরণ বিশ্বাস,
সাবেক সহসভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কেন্দ্রীয় সংসদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *