খুলনা জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনঃ আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে শারমিন সালাম

বিশেষ প্রতিনিধিঃ

সম্মেলন সামনে রেখে খুলনা জেলা মহিলা আওয়ামীলীগে নেতৃবৃন্দের তৎপরতা বেড়েছে। দীর্ঘ পাঁচ বছর পরে আগামী ৩০ শে অক্টোবর এই সম্মেলন হবার কথা। কেন্দ্র থেকে ইতমধ্যেই সম্মেলন করার কথা জানিয়ে খুলনা জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের নেতা, মুল দলের নেতাদের চিঠি পাঠিয়েছে। জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের বর্তমান সভাপতি কাজি জাহানারা শহীদ প্রথম সময়কে চিঠি পাওয়ার কথা জানিয়ে বলেছেন, সম্মেলন করার প্রস্তুতি চলছে। অন্য দিকে, মুল দলের একাধিক নেতা জানিয়েছেন, মহিলা আওয়ামীলীগ বাদেও বেশ কয়েকটি অঙ্গ সংগঠনের কমিটির মেয়াদ ইতমধ্যেই শেষ হয়ে গিয়েছে। জেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা ডেকে সবাইর সাথে শলা পরামর্শ করেই সম্মেলন করা হবে এমনটি আভাস দিয়েছেন তারা।
এদিকে মহিলা আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে কে বা কারা আসছেন এ নিয়ে ব্যাপক জল্পনা কল্পনা চলছে। এবার আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন খুলনা- ৪ আসনের এমপি আব্দুস সালাম মুরশেদির স্ত্রী শারমিন সালাম। কেন্দ্র থেকে শুরু করে তৃণমূল পর্যন্ত শারমিন সালামের জনপ্রিয়তা দেখার মতো। শিক্ষিত, মার্জিত, আলাপ ব্যবহারে বিনয়ী, নিরহংকার ধনকুবের একই সাথে দানবীর মহিলা হওয়ায় দলের হাই কমান্ড থেকে শুরু করে সর্বস্তরের নারি নেত্রিরা এবার তাকেই চাচ্ছেন। একাধিক সংস্থাও শারমিন সালামের ব্যাপারে পজিটিভ রিপোর্ট দিয়েছে বলে জানা গেছে। সুত্রমতে, নুন্যতম কোনও অভিযোগ নেই তার বিরুদ্ধে। রাজনীতিতে সক্রিয় হয়ে স্বামীর আসনে হাল ধরার পরে শারমিন সালাম ব্যাপকভাবে মহিলাদের সংগঠিত করেছেন। নজিরবিহীন ভাবে একের পর এক সভা সমাবেশ সফল করে সংগঠনকে অন্য এক উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। খুলনা- ৪ আসনের আওতায় তিন থানায় নারীসমাজের কাছে তিনি আশা আকাঙ্ক্ষার প্রতীকে পরিণত হয়েছেন। নারি কর্মীদের পাশে বটবৃক্ষের মতো ছায়া হয়ে দাঁড়িয়েছেন। করোনাকালে আর্থিক সহায়তা থেকে শুরু করে চিকিৎসা, টেলিসেবা, অক্সিজেন, এম্বুলেন্স সহযোগিতা করেছেন। শত শত সেলাই ম্যাশিন, ভ্যান দিয়েছেন। নারিদের স্বাবলম্বী করতে সাহায্য করতেছেন সব সময়েই। কৌতুক করে অনেকেই বলেছেন, সালাম মুরশেদি এমপির চেয়ে তার স্ত্রী শারমিন সালাম এখন অধিকতর জনপ্রিয়।
শারমিন সালামের কাজের প্রশংসা করে খুলনা জেলা আওয়ামীলীগের শীর্ষ এক নেতা তাকে মা দুর্গার সাথে তুলনা করেছেন। জানা গেছে, সামাজিক এসব কর্মকাণ্ডের জন্য দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব, জেলা আওয়ামীলীগের শুভাকাঙ্ক্ষীরা আগামী নেতৃত্বে শারমিন সালামকে নিয়েই ভাবছেন। আগামী নির্বাচন সামনে রেখে মহিলাদের ভোট টানতে এমন ডায়নামিক নারি নেতৃত্ব প্রয়োজন এমনটি উঠে এসেছে গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনে। দলের একাধিক সুত্র বলেছে, ঢাকার মেয়ে হয়েও শারমিন সালাম খুলনার রাজনীতিতে মাটি মানুষের সাথে মিশে গেছেন। নৈহাটি শ্বশুরবাড়ি এলাকার ভোটারও হয়েছেন ইতমধ্যেই।
প্রথম সময়ের সাথে আলাপকালে শারমিন সালাম আগামীতে জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে আসার ব্যাপারে বলেছেন, সালামকে জননেত্রি শেখ হাসিনা ছোট ভাইয়ের মতোই স্নেহ করেন। বিজিএমইএ এর নেতৃত্বে থাকার সময় থেকে তাদের মধ্যে ভাই বোনের সম্পর্ক। অন্যদিকে, খুলনার রাজনীতিতে আমাদের অভিভাবক শেখ হেলাল। তিনি বা তারা যদি আমায় দায়িত্ব দেন, সেটা করতে চেষ্টা করবো। দায়িত্ব পেলেও আছি, না পেলেও দলে আছি। দায়িত্ব পেলে জেলার নয় থানাতেই কাজ করবো আর না পেলে সালামের অর্ধাঙ্গিনী হিসাবে খুলনা- ৪ আসনে তো কাজ করতেই হবে।
মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মাহমুদা বেগম ক্রীক বলেছেন, শারমিন সালামদের মতো মহিলাদের সার্বক্ষণিক রাজনীতিতে পেলে দল উপকৃত হবে। তৃনমূলেও তার জনপ্রিয়তা রয়েছে।
ভিন্ন একটি সুত্র বলেছে, বিশেষ পরিবার থেকে শারমিন সালাম ইতমধ্যেই সবুজ সংকেত পেয়েছেন। দলের দায়িত্ব নেবেন শারমিন সালাম এমন মানসিক প্রস্তুতি নিতেও তাকে বলা হয়েছে। শারমিন সালাম নিজেও তেমন প্রস্তুতি নিয়ে কাজ শুরু করেছেন। প্রভাবশালী একজন শিক্ষিত, বিনয়ী যুব মহিলা লীগের নেতাকে রানিং মেট করে টিম গোছাচ্ছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *