প্রয়াত মেয়ে পিংকির কাছে এক মায়ের খোলা চিঠি

অনলাইন ডেস্কঃ

পিংকি,
০৯ই অক্টোবর ছিল আমার জন্মদিন। আমার জন্মদিন কে ঘিরে তোমাদের দুই বোনের জল্পনা কল্পনা পরিকল্পনা শুরু হোত আরো এক মাস আগের থেকে।কে বেশি দামী গিফট দেবে তাই নিয়ে চলত প্রতিযোগিতা। তোমাদের এই প্রতিযোগিতায় আমি নীরব দর্শক। কিন্তু ভেতরে ভেতরে
যে কি ভাল লাগা,প্রশান্তির ছোয়া বয়ে যেত আমার।।যা তোমাদের কাছে ছিল অজানা।আনন্দে চোখে পানি আসত আমার।গর্বে বুক টা ভরে যেত। মহান রাব্বুল আলামীনের কাছে শুকরিয়া আদায় করতাম যে আমার দুই রাজকন্যাই আমার বিনোদন, প্রশান্তি, আনন্দ ভালবাসায় সার্বক্ষণিক ভরিয়ে রাখে।আমার জীবনের না পাওয়া গুলো তোমাদের মাঝেই খুজে পেয়েছি।তাই তো কোন হাতছানি আমাকে পিছুটান তে পারেনি।আমি যখন তোমাদের প্রাপ্তি তে পরিপূর্ণ ছিলাম ঠিক তখনি আমার প্রশান্তির পৃথিবী ছেড়ে
চিরদিনের জন্য চলে গেলে পিংকি তছনছ হয়ে গেল আমার রাজ্য।

তোমার একটু স্পর্শ পাওয়ার জন্য মাটিতে কান লাগিয়ে রাখি।চোখ বন্ধ করে দীর্ঘ প্রার্থনায় তোমাকে খুজতে থাকি।
একটা অবাক ব্যাপার কি জানো?আগে কিন্তু সারাক্ষণ তুমি আমার সংগে থাকতেনা।অথচ এখন সদা সর্বদা তুমি আমার সংগে থাক।তোমার নিঃশ্বাস আমার ঘাড়ে পরশ বুলিয়ে দেয়।কত গল্প করি তোমার সংগে।প্রত্যেক দিনের এমন চলার সাথে দেখতে দেখতে ০৯ অক্টোবর চলে আসল।তুমি নেই,ছোট রাজকন্যা “পৃথবী” একা।প্লান পরিকল্পনা সব এলো-মেলো। আমাকে কিছু বলতে সাহস পায়না।তোমাদের আর আমার জন্মদিন শুরু হয় রাত ১২টা ১ মিনিটে কেক কেটে। তুমি নেই,কেক নেই,গিফট নেই।ছোট রাজকন্যা অনেক সাহস সঞ্চয় করে জোর করে নিয়ে গেল আড়ংয়ে।থ্রিপিস, জুতা কিনে দিল।তুমি নেই…তাই তার কোন প্রতিযোগিতা নেই।কিন্তু ঘূনাক্ষরেও বুঝতে পারিনি যে এবারেও গিফট এ তুমি জিতবে!হয়ত কাকতালীয়!তারপরও কি অদ্ভুত ব্যাপার! তোমার ভার্সিটি তোমার স্মরণে এতবড় পদক্ষেপ নিয়েছে!!
তোমার নাম করণে তোমার ভার্সিটি ইংলিশ ল্যাংগুয়েজ ল্যাব তৈরী করেছে।আর সেটা ০৯ তারিখেই প্রকাশ করেছে!!!!

তোমার কর্ম তোমাকে অমর করে দিচ্ছে প্রতিনিয়ত। সত্যিই
তুমি অসাধারণ “মা”।তোমার জন্য আমি গর্বিত। তুমি একটু ও মন খারাপ করবেনা।যতদিন আমি সুস্থ শরীরে সুস্থ মানসিকতায় বেচে থাকব ততদিন তোমার আত্নার শান্তির জন্য,তোমার গুনাহ মাফ এর জন্য,তোমার কবরএর আযাব মাফ এর জন্য দোয়া করব ইনশাল্লাহ পিংকি।

ইতি তোমার সন্তান হারা “মা”।

এড,সেলিনা আক্তার পিয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *