সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে সম্প্রীতি বিনষ্ট করা যাবে না: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্কঃ

শারদীয় দুর্গোৎসবকে হাজার বছরের সার্বজনীন উৎসব উল্লেখ করে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান বলেছেন, এটি আমাদের সম্প্রীতির উৎসব। ধর্ম যার যার হলেও উৎসবে সবাই অংশ নেন।

তিনি বলেন, স্বাধীনতা বিরোধী চক্র আজও আমাদের ধর্মীয় সম্প্রীতি বিনষ্টের চেষ্টা করে যাচ্ছে। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সম্প্রীতি বিনষ্ট করা যাবে না। বাংলাদেশ সম্প্রীতির দেশ সবাইকে তা মনে রাখতে হবে। আবার সবার সুবিধা ও অসুবিধা সবাইকে মনে রাখতে হবে। যার যে কোন অসুবিধা হোক না কেন, তার পাশে গিয়ে আমার, আপনার সবার দাঁড়াতে হবে। যে চেতনায় বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশকে স্বাধীন করেছেন, তা সবাইকে ধারণ করতে হবে।

সোমবার বিকালে ভোলায় শারদীয় দুর্গাপূজা মণ্ডপ পরির্দশনকালে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এ সময় জেলা প্রশাসক মো. তৌফিক ইলাহী চৌধুরী, পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার, উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন দুলাল, সিভিল সার্জন কেএম শফিকুজ্জামান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সুজিত হাওলাদার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মামুন আল ফারুক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মিজানুর রহমান, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাবেক সভাপতি প্রফেসর দুলাল চন্দ্র ঘোষ, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শিবু কর্মকার, সম্পাদক অসীম সাহা, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক অবিনাশ নন্দী, ওই সংগঠনের সম্পাদক ধ্রুব হাওলাদারসহ হিন্দু নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে প্রতিমন্ত্রী ধর্মীয় সম্প্রীতি উন্নয়ন বিষয়ক সংলাপ অনুষ্ঠান ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন আয়োজিত এক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।

এ সময় ফেসবুকসহ সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে যাতে কেউ ধর্মীয় সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে না পারে তার জন্য কঠোর নিয়মনীতি তৈরীর প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রতিনিধিরা অভিযোগ করেন, বর্তমানে ফেসবুকে নামে বেনামে অ্যাকাউন্ট খোলা যাচ্ছে। ব্যক্তিস্বার্থ হাসিলের জন্য ভালো মানুষকে অভিযুক্ত করার জন্য ওই ব্যক্তির নামে অ্যাকাউন্ট খুলে, তাতে উস্কানিমূলক পোষ্ট ছড়িয়ে দিয়ে সঙ্গে সঙ্গে ওই আইডি ডিলেট করা হয়। এভাবে সামাজিক সম্প্রীতি বিনষ্ট হচ্ছে।
কঠোর নিয়ম নীতির জন্য জাতীয় পরিচয় পত্র ব্যবহার, ফিঙ্গার প্রিন্ট ব্যবহার করার দাবি তোলা হয়।

প্রতিমন্ত্রী এসব বিষয় বিবেচনা করা হচ্ছে বলে জানান। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, চরফ্যাশন উপজেলা চেয়ারম্যান জয়নাল আবদীন আকনদ, বোরহানউদ্দিন উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম গোলদার, প্রেসক্লাব সভাপতি এম. হাবিবুর রহমান, প্রফেসর দুলাল চন্দ্র ঘোষ, মুসলিম ঐক্য পরিষদের সম্পাদক উপাধ্যক্ষ মোবাশ্বের নাঈম, সুজনের সভাপতি মোবাশ্বের উল্লাহ চৌধুরী, ঈমান আকিদা সংরক্ষন কমিটির সভাপতি মাওলানা তাজউদ্দিন আহমেদ ফারুকী, ইসলামী আন্দোলন নেতা মাওলানা আতাহার উদ্দিন মনতাজী, ইমাম সমিতির সভাপতি মাওলানা বেলায়েত হোসেন প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *